Association for Realisaton of Basic Needs-ARBAN

আরবান-এর ভিশন, মিশন, লক্ষ্য-উদ্দেশ্য

এসোসিয়েশন ফর রিয়েলাইজেশন অব বেসিক নিড্স-আরবান গণমানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা ও মৌলিক চাহিদা পূরণ এবং সাধারণ শ্রমজীবী মানুষের অভাব-অনটন, দুঃখ-বেদনা-দূর্দশা, শোষণ-নির্যাতন-বঞ্চনা দূর করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে ১৯৮৪ সনের ১৮ ফেব্রুয়ারী প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রতিষ্ঠান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজ সেবা অধিদপ্তর, এনজিও বিষয়ক ব্যুরো ও জয়েন্ট স্টক কোম্পানীর সোসাইটিজ এক্টে রেজিষ্ট্রীকৃত এবং আরবান মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটি থেকেও সনদ লাভ করেছে।

Read Our Vision, Mission, Goal & Core Values
previous arrow
next arrow
Slider
WORD FROM CEO

READ THE MESSAGE FROM OUR CEO

আরবান বিশ্বাস করে যে, সরকার, আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান, জাতিসংঘের শাখাসমূহ ও এনজিও দ্বারা পরিকল্পিত ও গৃহীত সকল প্রকার উন্নয়ন প্রকল্প ও কর্মসূচী দুঃখ-দারিদ্র, দূর্ভিক্ষ, অপুষ্টি, রোগ-ব্যাধি, বঞ্চনা, শোষণ-নির্যাতন রোধ এবং চির অবসানের জন্য বাস্তবায়িত হওয়া অত্যাবশ্যক। বাংলাদেশ কোনক্রমেই একটি দরিদ্র দেশ নয়, বরং এদেশকে দরিদ্র ও দূর্বল করে রাখা হয়েছে। বাংলাদেশ সৎ, পরিশ্রমী কৃষক-শ্রমিক, উর্বর পলিমাটি, প্রাকৃতিক গ্যাস, খনিজ সম্পদ, নদ-নদী, জলাশয় ও বনাঞ্চল সমৃদ্ধ একটি দেশ। আরবান বিশ্বাস করে যে, বাংলাদেশের জনগণ সম্পদের অভাবে দরিদ্র ও ক্ষমতাহীন নন বরং সম্পদের উপর তাঁদের মালিকানা, অধিকার ও অভিগম্যতা না থাকার কারণেই দেশে দরিদ্র ও ক্ষমতাহীন মানুষের সংখ্যা বেশী।

মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন
সমন্বয়কারী
আরবান।

Our Core Programs

service

Savings & Credit Assistance Programme-SCAP

গ্রাম-শহরের শ্রমজীবি দরিদ্র নর-নারী ও প্রান্তিক পেশাজীবি মানুষের সংগে ব্যক্তিগত যোগাযোগ, পাড়া/মহল্লা/গ্রাম ভিত্তিক সভা, উন্নয়নমূলক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম প্রভৃতির মাধ্যমে দরিদ্র মানুষের সংগঠন গড়ে তোলার প্রক্রিয়া সূচিত হয়। আরবান-এর কর্মএলাকার শ্রমজীবি দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে উক্ত প্রক্রিয়ায় আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, প্রাথমিক স্বাস্থ্য, পরিবেশ-প্রতিবেশ প্রভৃতি বিষয়ে অবহিত ও সচেতন করে অর্থনৈতিক উন্নয়নের মাধ্যমে স্বনির্ভর করার জন্য ১৫-২০ সদস্য বিশিষ্ট প্রাথমিক সংগঠন বা সমিতি গঠন করা হয়।

আরবান মনে করে, শুধু সচেতনতা বৃদ্ধি পেলেই মানুষ নিজেদের অথবা সমষ্টিগতভাবে উন্নতি ত্বরান্বিত করতে পারে না। চেতনা বিকাশের পাশাপাশি থাকতে হবে অর্থৈেনতিক সহায়তা। ব্যক্তি মানুষ কিংবা সমাজের সামগ্রিক অগ্রগতি ও বিকাশের জন্য ভবিষ্যতে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা ও সহায়তা জরুরী।

service

Non-formal Education and Training for Human Resource Development

দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চলমান উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ও মানব সম্পদ উন্নয়নমূলক প্রকল্প ও কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে

♕Education and Social Support for the Children and Adolescents Living in Bauniabandh Slum-ESCAS

♕ Contrasting Gender Discrimination and Promoting Social Development in Order to Amplify the Life Opportunities of Children and Adolescents in 5 Dhaka Slums- AICS

♕ United We Stand

♕আরবান চানমারী স্কুল
♕ Tangi Children education Project-TCEP
♕ Skill development & Income generation programme-SDIGP
♕ Students Internship Program

service

Primary Health Care, Water, Sanitation, Hygiene, Ecology and Environment Promotion

জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা Goal 6: Ensure access to water and sanitation for all” (বিশুদ্ধ পানি ও পয়:ব্যবস্থা) অর্জনের জন্য দেশব্যাপী সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিপূর্বে ঘোষিত ‘সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার’ আলোকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ‘সবার জন্য স্যানিটেশন’ ব্যবস্থা গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছিলেন যদিও কাজটি অত্যন্ত দূরুহ।  প্রায় ২ কোটি লোক এই ঢাকা মহানগরীতে বাস করেন। প্রতি বছর ঢাকার জনসংখ্যার সাথে যুক্ত হচ্ছে অতিরিক্ত প্রায় ৫ লাখ অভিবাসী। ‘সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ’ এর গবেষণা অনুযায়ী ঢাকায় প্রতিদিন প্রায় ৫৫ লাখ মানুষের চাহিদার বিপরীতে সিটি কর্পোরেশনের ৬৯টি পাবলিক টয়লেটের মধ্যে মাত্র ৪৭টি ব্যবহার উপযোগী ছিল ২০১১ সাল নাগাদ যদিও বর্তমানে এই সংখ্যা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রয়োজনের তুলনায় এই সংখ্যা নিতান্তই অপ্রতুল। এ অবস্থা নিরসনের লক্ষ্যে WaterAid Bangladesh এর সহায়তায় আরবান পথচারী ও ভাসমান মানুষের চলার পথে স্যানিটেশনের মতো অতি জরুরী একটি নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি করার জন্য ‘Promoting Environmental Health for the Urban Poor-PEHUP প্রকল্প গ্রহন করে।

service

Promotion and Protection of Human Rights

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা Goal 15: Sustainabily manage forest, combat desertifition, halt and reverse land degration halt bio-diversity loss” (স্থলজ বাস্ততন্ত্রের পুনরুদ্ধার ও সুরক্ষা প্রদান এবং টেকসই ব্যবহারে পৃষ্ঠাপোষণা, টেকসই বন ব্যবস্থাপনা, মরুকরণ প্রক্রিয়ার মোকাবেলা, ভূমির অবক্ষয় রোধ ও ভূমি সৃষ্টি প্রক্রিয়ার পুনরুজ্জীবন এবং জীববৈচিত্র হ্রাস প্রতিরোধ) এর লক্ষ্য অর্জনের জন্য দেশব্যাপী সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। কৃষি, জলা ও অন্যান্য প্রাকৃতিক সম্পদে দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইন্টারন্যাশনাল ল্যান্ড কোয়ালিশন-আইএলসি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মূলতঃ এর সদস্য সংগঠনসমূহ এবং তাদের মাধ্যমে বিভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট¬দের সম্পৃক্ত করে জাতীয় ভূমি ইস্যুতে সমন্বিতভাবে কাজ করার একটি কৌশল হিসেবে National Engagement Strategy-NES কর্মসূচী গ্রহণ করে।

service

Disaster Preparedness and Management

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা Goal 6: Ensure access to water and sanitation for all” বিশুদ্ধ পানি ও পয়:ব্যবস্থা) অর্জনের জন্য দেশব্যাপী সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই আলোকে আরবান জুলাই, ২০১০ থেকে ডিসেম্বর, ২০১২ পর্যন্ত নেদারল্যান্ডের ওয়ার্ল্ড ফুড সেন্টারের পরিচালক ডঃ মাইকেল এ কাইজার ও তাঁর সহধর্মিনী মিজ আন্দ্রিয়া কাইজার এর আর্থিক সহায়তায় আরবান Safe Water Supply, Sanitation, Hygiene Promotion and Primary Health Care Service (SSHP) in Coastal and Urban Areas of Bangladesh নামে ৩০ মাস মেয়াদী একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করে। পরবর্তীতে দাতা সংস্থার অনুমোদনক্রমে প্রকল্পের External Audit কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে অক্টোবর ২০১৪ থেকে ডিসেম্বর, ২০১৭ পর্যন্ত ২য় পর্যায়ে Safe Water, Sanitation, Hygiene Promotion and Primary Health Care Service(SSHP) in Coastal Areas of Bangladesh নামে ৩ বছর মেয়াদী প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে।
প্রকল্পের লক্ষ্য
বাংলাদেশের উপকূল অঞ্চলের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর ঝুঁকি ও অরক্ষিত অবস্থার হ্রাসকরণ যারা মৌলিক সেবাসমূহের অভাবে বিপদ সংকুল পরিস্থিতির মধ্যে বেঁচে থাকতে বাধ্য হন।

service

Building Alternative People’s Organizations and Community Leadership

‘অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইন ২০০১ এর বাস্তবায়ন পরিস্থিতি এবং করণীয়’ শীর্ষক সেমিনার

২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ তারিখ সকাল ১০টায় আরবান-এর উদ্যোগে পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার ‘উপজেলা উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে’ “অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইন ২০০১ এর বাস্তবায়ন পরিস্থিতি এবং করণীয়”শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, বাউফল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ আবু সুফিয়ান, সহকারী কমিশনার ভূমি, বাউফল, জনাব মোছাঃ রুনিয়া বেগম, জেলা পরিষদ সদস্য, পটুয়াখালী ও জনাব মোছাঃ রেহেনা বেগম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, বাউফল। সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব মোঃ শামসুল আলম মিয়া, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, বাউফল, পটুয়াখালী। এ ছাড়াও সরকারী কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিনিধি, সাংবাদিক, আইনজীবি, সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধি, জন প্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

NEWS AND MEDIA

LATEST FROM BLOG

OUR PARTNERS

Top